রোহিঙ্গাদের সহযোগিতায় কবি কালাম আজাদের প্রস্তাবনা

273

জকিগঞ্জ ভিউ ডেস্ক::
মিয়ানমারে নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের সহযোগিতার জন্য সাহিত্য-সংস্কৃতি সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের নিয়ে একটি স্থায়ী ফোরাম গঠনের প্রস্তাব করেছেন সমকালীন বাংলা সাহিত্যের শক্তিমান কবি, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, জকিগঞ্জ ভিউ টোয়েন্টি ফোর ডটকমের অন্যতম উপদেষ্টা কবি কালাম আজাদ। গতকাল বিকালে তিনি তাঁর ফেসবুক আইডিতে প্রস্তাবনাটি উপস্থাপন করেন। জকিগঞ্জ ভিউয়ের পাঠকদের জন্য তাঁর প্রস্তাবনাটি হুবহু দেওয়া হলো।

একটি প্রস্তাবনা

কবি কালাম আজাদ

আমি জানিনা আমার প্রস্তাবনাটি অবাস্তব বা ইউটোপীয় কী না! তবু বেশ ক’জন উদ্যমী সচেতন সাহিত্যসেবী আরাকানী উদ্বাস্তু তথা আরাকান ইস্যু নিয়ে প্রতিবাদী কোন প্রোগ্রাম করার পরামর্শ দিয়েছেন।
তাঁদের কথায় বুঝেছি, যেহেতু আমি বুড়ো (প্রবীণ) এবং সাহিত্যে তাঁদের সাথে সাধ্যমতো থাকি সেইহেতু আমি ডাকলে তাঁরা একটা প্রতিবাদ সভা,মানব বন্ধন বা একটা কবিতা যুদ্ধ বাস্তবায়নে এগিয়ে আসবেন।
এই অনুরোধ আমার জন্যে সম্মানজনক এবং এটি আমার বয়সের পুরষ্কার, যোগ্যতার মনে করিনা।
অথচ এই বয়স ফেক্টরই আমাকে এক পা’ এগোতে দেড় পা’ পিছিয়ে দেয়!
কেনো? বলছি:
আমি গ্রামীণ মানুষ। অজস্রবার শুনা এবং বলা একটি বাক্যঃ “শুধু জোশে নয়, হুশের সাথে জোশে কাজ করো”!

আরাকানী উদ্বাস্তু বিষয়ে বাংলার তথা বাঙ্গালীর আবেগ বিষয়ে আমরা জানি। অকৃত্রিম ভালোবাসায় সকল দল মতের মানুষ প্রতিবাদ এবং ত্রাণকাজে অংশ নিচ্ছেন। কিন্তু প্রশ্ন এই আবেগ কতদিন থাকবে? আমরা যদি একটা প্রতিবাদী কিছু করি ও!
মনে রাখতে হবে এটি এক দীর্ঘকালীন সমস্যা। আন্তর্জাতিক মোড়লেরা এই সমস্যার আশু সমাধান করবেন না কী নিজনিজ স্বার্থের খিচুড়ি পাঁকাবেন, তা আমরা জানিনা। তাই, আরাকান উদ্বাস্তুদের সহায়তা এবং তাদের মুক্তির পথে স্থায়ী নৈতিক-আর্থিক সহায়তার জন্য একটি ফোরাম প্রতিষ্ঠার আহ্বান জানাতে চাই।
মূলত সাহিত্য সংস্কৃতির মানুষেরা এই ফোরাম প্রতিষ্ঠা ও পরিচালনা করবেন।
আমার ভাবনায় এর নাম হবেঃ “আমরা আরাকান দরদী”।
এর মূল কাজ হবে আরাকানীদের সহায়তায় দেশী বিদেশী সকল মানুষকে উদ্বোদ্ধ করা।
প্রিয় সাহিত্য সেবী ভাই বোনেরা,
আমার এই আবেগের সার্বজনীনতা বিষয়ে আমি নিঃসন্দেহ। আপনি এতদ্বিষয়ে আপনার অভিমত জানালে এর একটি বাস্তব রূপায়ন অবশ্যিই সম্ভব।
প্লিজ আপনার মতামত দিন। আসসালাম।