সেই নাঈমের বাবা ডাব বিক্রেতা ও মা গৃহকর্মী

45
বনানীর এফ আর টাওয়ারে আগুন লাগার পর ফায়ার সার্ভিসের লিকেজ পাইপ ধরে পানি আটকাচ্ছে শিশু নাঈম

জকিগঞ্জ ভিউ::

শিরোনাম হতে পারে শিশুর ভেতর মানবতা
অথবা
সেই নাঈমের বাবা ডাব বিক্রেতা ও মা গৃহকর্মী

আহমদ আল মনজুর

আমাদের দেশে একটি শিশুর অন্তরেও যে মানবতা আছে তা আমরা ২৯ মার্চের বনানীতে কামাল আতাতুর্ক অ্যাভিনিউয়ের ১৭নং সড়কে এফ আর টাওয়ারে ট্র্যাজেডি থেকে বুঝতে পারি।

পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র নাঈম। তার গ্রামের বাড়ি বরিশালে। পিতা রুহুল আমিন ডাব বিক্রেতা ও মা গৃহকর্মীর কাজ করেন। আগুন লাগার খবর শুনে নাঈম ঘরে বসে থাকতে পারে নি। ছুটে আসে ঘটনাস্থলে। দেখে এ এক অন্যরকম দৃশ্য। যা তার হৃদয় নাড়া দেয়। মনকে জিজ্ঞেস করে এখন তার করণীয় কী? তখন ই হাজারো মানুষের ভীড়ে নাঈম দেখে ফায়ার সার্ভিসের পাইপে লিক। তখন ই নিজেকে আবিষ্কার করে এই মানবতার সেবায় নিজেকে অংশীদার করতে। প্রায় বিশ মিনিট সময় পাইপের লিকে দুই হাত আর এক পা দিয়ে শক্ত হাতে ধরে।

মোদ্দা কথা, মানবতা নির্দিষ্ট পাত্রে থাকে না। থাকে না কোনো নির্দিষ্টে ধর্মের মানুষের মাঝে। থাকেনা কোটিপতির ছেলেমেয়ের কাছে। মানবতার জয় দেখিয়েছে ডাব বিক্রেতার ছেলে, গৃহকর্মীর ছেলে, পঞ্চম ছাত্র শ্রেণীর নাঈম।

লেখক: নির্বাহী সম্পাদক, জকিগঞ্জ ভিউ।