ভয়েস অভ কুরআন ২০২০ এর পুরষ্কার প্রদান অনুষ্ঠান সম্পন্ন

31

জকিগঞ্জ ভিউঃ সিলেট বিভাগের হুফফাযে কুরআনদের অনলাইন ভিত্তিক হিফযুল কুরআন প্রতিযোগিতা ভয়েস অভ কুরআন ২০২০ এর পুরষ্কার প্রদান অনুষ্ঠান ২৭ ডিসেম্বর রবিবার সিলেটের অভিজাত হোটেল মেট্রো ইন্টারন্যাশনালে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

ইয়াকুবিয়া হিফযুল কুরআন বোর্ড বাংলাদেশ এর জেনারেল সেক্রেটারী হাফিয মাওলানা ফখরুদ্দীন চৌধুরী’র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইছামতি কামিল মাদরাসার (অব.) অধ্যক্ষ শায়খুল হাদীস হযরত আল্লামা হাবিবুর রহমান, প্রধান আলোচকের বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আনজুমানে আল-ইসলাহ’র সভাপতি হযরত মাওলানা হুছামুদ্দীন চৌধুরী ফুলতলী।

ভয়েস অভ কুরআনের তত্ত্বাবধায়ক হাফিয নজম উদ্দিন আহমদের কর্ম পরিকল্পনায় খিদমাতুল উম্মাহ্ ফাউন্ডেশনের পরিচালক মাওলানা মাহফুজ আল মাদানী ও হাফিয মাওলানা আবুল ফজল মুহাম্মদ ত্বাহা’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র জনাব আরিফুল হক চৌধুরী।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন চান্দাইপাড়া ফাযিল মাদরাসার অধ্যক্ষ হযরত মাওলানা ছরওয়ারে জাহান, হলিয়ার পাড়া ফাযিল মাদরাসার অধ্যক্ষ হযরত মাওলানা মঈনুল ইসলাম পারভেজ, বাংলাদেশ আনজুমানে তালামীযে ইসলামিয়া’র কেন্দ্রীয় সভাপতি জনাব আখতার হোসাইন জাহেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক জনাব মুজতবা হাসান চৌধুরী নোমান, বাংলাদেশ আনজুমানে আল ইসলাহ ইউকে লোটন শাখার দায়িত্বশীল মাওলানা আবুল কাশেম, মাসিক অভিযাত্রিকের সম্পাদক কবি মাওলানা রফীকুল ইসলাম মুবীন।

সেরা দশের প্রথম হাফিয হাফিজ আহমেদের কুরআন তিলাওয়াত ও সবুজ কুড়িঁ শিল্পী গোষ্ঠীর নির্বাহী পরিচালক মামুনুর রশীদের ইসলামি সঙ্গীত পরিবেশনের মাধ্যমে সূচিত অনুষ্ঠানে অতিথিগণ বলেন, পৃথিবীতে অন্য কোন ধর্মগ্রন্থ বা এমন কোন বই নেই যা লক্ষ লক্ষ মানুষ মুখস্থ করতে সক্ষম হয়েছে। কিন্তু অসংখ্য মানুষ রয়েছে যাদের অন্তরে পবিত্র গ্রন্থ আল কুরআন বিদ্যমান রয়েছে। অন্তরে বিদ্যমান রত হাফেযের জন্য আল্লাহ জান্নাতে বিশেষ স্থান নির্ধারন করে রেখে দিয়েছেন। দুনিয়াতেও তাদেরকে সবাই সম্মানের চোখে দেখে। করোনা কালীন বিপর্যয়ে ভয়েস অভ কুরআন এরকম একটা প্রতিযোগিতা মূলক অনুষ্ঠান আয়োজনের ফলে ছোট ছোট বাচ্চারা কুরআন হিফযের প্রতি উৎসাহিত হবে।

অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, তালামীযে ইসলামিয়া’র কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি জনাব মুহিবুর রহমান, প্রচার সম্পাদক সৈয়দ আহমদ আল জামিল, দক্ষিণ সুরমা উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান জনাব মাহবুবুর রহমান, পাঁচ ভাই রেস্টুরেন্টের সত্ত্বাধিকারী শাহিন আহমদ, রাখালগঞ্জ বাজার জামে মসজিদের ইমাম ও খতিব হাফিয মাওলানা মঞ্জুর আহমদ, ইমাম বাড়ি হাফিযিয়া মাদরাসার মুহতামিম হাফিয মাওলানা মাশুক আহমদ, মুসলিমাবাদ হাফিযিয়া মাদরাসার প্রধান শিক্ষক হাফিয মাওলানা ফাতির আহমদ, কলাবাগান লতিফিয়া হাফিযিয়া মাদরাসার প্রধান শিক্ষক হাফিয মাওলানা আব্দুন নূর, দিক কুরআনিক হোম’র প্রিন্সিপাল হাফিয ফয়েজ আহমদ, শাহজালাল রহমানিয়া ইন্টারন্যাশনাল মাদরাসার পরিচালক হাফিয মাওলানা আব্দুল মুক্তাদির আল আযহারী, ধারন ইয়াকুবিয়া হিফযুল কুরআন মাদরাসার পরিচালক হাফিয আব্দুল আজিজ, আল কুরআন মেমোরাইজিং সেন্টার ফুলতলী ছাহেব বাড়ীর প্রধান শিক্ষক হাফিয মাওলানা জাহাঙ্গীর আলম, ইয়াকুবিয়া হিফযুল কুরআন বোর্ড ছাতক (উত্তর) উপজেলা সাধারণ সম্পাদক হাফিয সাইফুল আলম, রহমানিয়া হাফিজিয়া মাদরাসার প্রধান শিক্ষক হাফিয তাজ উদ্দিন আহমদ হাসান, হাফিয সৈয়দ আল আমিন, হাফিয তুহিন আহমদ, হাফিয আসিফ আহমদ চৌধুরী, হাফিয আব্দুল মজিদ, ছায়েম হোসাইন, হাফিয শাহ আলম, হাফিয লোকমান আহমদ, হাফিয সাইফুর রহমান, হাফিয জাকির আহমদ প্রমুখ।

সেরাদশ পুরস্কৃতরা হলেন হাফিয হাফিজ আহমদ, হাফিয নাহিদ আহমদ, হাফিয আমির হামজা, হাফিয হোসাইন আহমদ, হাফিয মতিউর রহমান রেদ্বওয়ান, হাফিয মিজানুর রহমান, হাফিয মোঃ আব্দুল বাছির, হাফিয মোঃ আলমগীর হোসেন, হাফিয হাসান আহমদ ও হাফিয ফরহাদ আহমদ।

অনুষ্ঠানে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী সেরা দশজনের মধ্যে পুরুষ্কার নগদ চেক ও ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।