সিলেটের পুলিশ সুপার-এর মায়ের মৃত্যুতে জকিগঞ্জ থানা পুলিশের মিলাদ ও দোয়া মাহফিল

4

 


স্টাফ রিপোর্টারঃ নিজের সততা, দক্ষতা, মানবিকতা, মেধা, নীতি-আদর্শ ও বীরত্বপূর্ণ কাজে সিলেটবাসীর আপনজন হয়ে উঠা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন পিপিএম-এর মায়ের মৃত্যুতে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল করেছে জকিগঞ্জ থানা পুলিশ।
বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) বাদ জোহর জকিগঞ্জ থানা মসজিদ প্রাঙ্গনে থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আবুল কাসেম-এর সার্বিক তত্বাবধানে এ মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
মিলাদ ও দোয়া মাহফিল পরিচালনা করেন জকিগঞ্জ থানা মসজিদের ইমাম ও খতিব মাওলানা ক্বারী আব্দুস শাকুর। মোনাজাতে তিনি সদালাপী, নির্ভীক ও দেশপ্রেমিক পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন পিপিএম-এর মমতাময়ী মায়ের আত্মার মাগফিরাত, পরকালীন মুক্তি ও শান্তি কামনা করেন।
এ সময় জকিগঞ্জ থানা পুলিশের সকল অফিসার ও ফোর্সবৃন্দ ছাড়াও স্থানীয় এলাকাবাসী উপস্থিত ছিলেন।
জানা যায়, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন পিপিএম-এর মায়ের মৃত্যুর ঠিক আগের দিন মধ্যরাতে নিজের পেশাগত দায়িত্ব পালনে সিলেটের সীমান্তবর্তী জকিগঞ্জে ছিলেন। তিনি যখন জকিগঞ্জের কালিগঞ্জ বাজারে কুমিল্লার একটি পূজা মন্ডপে পবিত্র ক্বোরআন অবমাননার ঘটনাকে কেন্দ্র করে পুলিশের উপর হামলা ও গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনাস্থল পরিদর্শন করছিলেন ঠিক তখনই তাঁর মমতাময়ী ‘মা’ হার্টএ্যাটাক করেন।
এ প্রসঙ্গে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন পিপিএম নিজের ব্যক্তিগত ফেসবুক আইডিতে বলেন, সন্ধ্যা থেকেই জনশৃঙ্খলা রক্ষা ও জনগণের জান -মাল নিরাপদ রাখতে কাজ করছিলাম। হঠাৎ বাসা থেকে Mahfuza Sharmin আমার সহধর্মিনীর ফোন, জানালো-মা হার্ট ফেইল করেছে। এ সময় সরকারি দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে আমার কয়েকজন সহকর্মী জীবন মৃত্যুর সাথে লড়াই করছিলো। স্ত্রীকে বললাম তুমি মাকে বাঁচাও, আমি সহকর্মীদের উদ্ধার করি। এখন রাত ০১:৩০ , ফিরছি আমি প্রত্যন্ত এলাকা থেকে। মা আমার আইসিইউতে। আমার স্ত্রী একাই সামলালেন। অশেষ কৃতজ্ঞতা ডা: তারেক, ডা: শোয়েব, ডা: রাশেদুন্নবী, সাদেক ভাই এবং আমার প্রিয় সহকর্মী দের প্রতি।
সকলের নিকট দোয়া চাই।
এর মাত্র একদিন পর শনিবার (১৫ অক্টোবর) ভোরে সিলেট এম.এ.জি. ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় কর্তব্যপরায়ণ এই পুলিশ অফিসারের মায়ের ইন্তেকাল হয়।